How to earn money online in Bangladesh without investment

Sharing is caring!

How to earn money online in Bangladesh without investment: আপনি কি অনলাইনে অর্থ উপার্জনের উপায়গুলি সন্ধান করছেন?

আপনি আগে অনলাইনে অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করেছিলেন কিন্তু সাফল্য হতে পাননি? তাহলে আর চিন্তা করার দরকার নেই! আমরা আপনাকে বলে দিবো কিছু সহজ উপায়।

List of earn money online in Bangladesh without Investment

১। এফিলিয়েট মার্কেটিংঃ

ইন্টারনেট থেকে অর্থ উপার্জন করতে চান আর এফিলিয়েট মার্কেটিংয়ের নাম শুনে নি এটা হতে পারে না। আমরা সাধারণত এফিলিয়েট মার্কেটিং মানে শুধু আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং এর কথাই জানি। আমাজন ছাড়াও আরো অনেক ভাবে এফিলিয়েট করা যায় যদি আপনার একটি ব্লগ থাকে অথবা এমন কোনো প্লাটফরম থাকে যেখান থেকে আপনি বিভিন্ন মানুষ পাঠাতে পারবেন নির্দিস্ট এফিলিয়েট প্রোডাক্টটি কিনার জন্য। চলুন দেখি আসি বিশ্বের সেরা কিছু আফিলিয়াট সাইটঃ 

১।  amazon associates

২।  ebay partner

৩। Shopify Affiliate Program

৪। Clickbank

৫। Rakuten Marketing Affiliates

৬। MaxBounty Affiliate Network

৭। jvzoo affiliate

এইগুলো ছাড়াও আরো অনেক এফিলিয়েট সাইট আছে যেখান আপনি যোগ দিয়ে তাদের এফিলিয়েট লিংক নিতে পারবেন এবং শেয়ার করে অর্থ উপার্জন করতে পারবেন যুদি কেউ ওই প্রোডাক্টটা কিনে। যুদি চিন্তা করেন যে বাংলা এফিলিয়েট সাইট এর কথা তাহলেও উপায় আছে। কিন্তু এটার সংখ্যা খুবি কম। আমার কাছে সবচেয়ে ভালো মনে হয়েছে bd shop কে। নিচে ভিডিওটা দেখুন:

আর যুদি এফিলিয়েট মার্কেটিং শিখতে চান তাহলে আমি আপনাকে দুই গুরুত্বপূর্ণ ইউটিউব লিংক দিবো যদি আপনি তাঁর জন্য পোস্ট নিচে কমেন্ট যেয়ে প্রশ্ন করেন।

আপনি এখনে দেয়া এই সাইট থেকে বাংলায় কোসটি করতে পারেন। যদিও এইটা ফ্রি না টাকা দিয়ে কিনতে হবে কিন্তু এইটা আমরা দেখা অনেক ভালো অনলাইন সাইট আমি এখান থেকে কোস করেছি তাই আপনারও চাইলে করতে পারেন। দেখে আসুন

 

২। ব্লজ্ঞিংঃ

ব্লজ্ঞিং করেও ভালো টাকা উপার্জন করা যায় যদি আপনার একটু চেষ্টা থাকে। ব্যাপারটা এমন না যে মানুষের সবচেয়ে বেশি যেই বিষয়টা পছন্দ ঠিক বিষয়টাতেই আপনাকে লিখতে হবে। ব্লজ্ঞিং এর একটা কথা আছে আপনি যেই বিষয়টা ভালো জানেন ঠিক ওই বিষয়টা নিয়েই লিখেন দেখবেন কিছু সময় পড়ে সবাই আপনাকে খুজে নিচ্ছে।

এমন নয় যে আপনাকে শুধু ইংরেজিতেই লিখতে হবে আপনি চাইলে বাংলা লিখেও টাকা ইনকাম কর্মতে পারেন। ধরে নিলাম আপনার এখন ভিজিটর আছে এবং অনেক ভালো লিখা আছে তাহলে আপনি টাকা ইনকাম করবেন কি করে তাই তো? ব্যাপারটা খুবই সহজ আপনি যুদি চান তাহলে আপনি গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন করতে পারবেন একই সাথে আপনি আফিলিয়েট করতে পারবেন অথবা আপনি আপনার নিজের কিছু বিক্রি করতে পারবেন যখন আপনি সবার বিশ্বাস এর জায়গা তৈরি করতে পারবেন তখন মানুষজন আপনার থেকে কিনবে যেহেতু আপনি সবাইকে ভালো ভালো অনেক কিছু শিখিয়েছেন।    

৩। রাইটার হয়ে:

এফিলিয়েট মার্কেটিং অথবা ব্লজ্ঞিং দুইটার জন্যই দরকার একজন খুব ভালো মানের রাইটার আর সেটা যদি  আপনি নিজে করতে পারেন তাহলে তো কথাই নেই । ওই ক্ষেত্রে আপনি অনেকটাই এগিয়ে থাকবেন। এছাড়াও আপনি চাইলে লিখালিখি করে ভালো টাকা আয় করতে পারবেন। আর কারণটাও খুব সহজ ইন্টারনেট দুনিয়া অনেক বড় হচ্ছে দিন দিন এবং মানুষ অনেক ওয়েবসাইট খুলছে প্রতিনিয়ত  কিন্তু যে পরিমাণ ওয়েবসাইট আছে ওই পরিমাণ ভালো মানের রাইটার কিন্তু নেই।

সুতরাং আপনার অনেক সুযোগ আছে এখানে। খুব মজার ব্যাপার হল রাইটিং এর শুধু একটা ধাপ না এর সাথে আরো অনেক ধাপও আছে যুদি আপনি শুধু একটা শেষ করতে পারেন দেখবেন বাকি গুলাও খুব সহজ হয়ে গেছে। চলুন দেখে নেয়া যাক কি কি সুযোগ আছে আপনার কাছেঃ 

Academic writing 

Blog writing 

Books review writing 

Product review writing 

SEO writing 

Traveling  Writing 

Email Writing 

Cv Writing 

Niche Writing etc 

আরো অনেক আছে।  এইবার আপনি হয়তো বা বলতে পারেন ভাই বাংলা লেখালেখি করে  টাকা আয় করার কি কোন সুযোগ আছে, তাহলে আপনাকে বলতে হয় এই সুযোগটাও আছে। যুদি আপনি ইন্টারনেট এর কাজ করে থাকেন অথবা কিছুটা পড়াশুনা করে থাকেন তাহলে আপনি দেখবেন যে এখন গুগলও বাংলা ভাষায়ও বিজ্ঞাপন দেয় যেটা আমাদের জন্য খুবই ভালো খবর তাই আপনি চাইলেও বাংলাতে একটা ওয়েবসাইট বানিয়ে টাকা আয় করতে পারেন গুগল এর বিজ্ঞাপন থেকে।

আর ওয়েবসাইট বানাতে চাইলে আমাদের সাথে কথা বলতে পারেন। ওকে দরে নিলাম আপনি ওয়েবসাইট না বানিয়ে আয় করতে চান এর জন্যও ব্যবস্থা আছে। নিচের ভিডিওটা দেখে নিনঃ  

৪। ইউটিউবারঃ

মানুষ এখন অনেকটাই পালটে গেছে দেখুন আগে যা মানুষ টেলিভিশান এ দেখতো এখন তা দেখে ইউটিউব এ। এমন না যে মানুষ শুধু এখানে বিনোদন পেতে আসে। ইউটিউব অনেকের আছে একটা শিক্ষার জায়গাও। এইতো যেদিন আমি একটা অংক পারতে ছিলাম না তখন ইউটিউব একটু ডু মেরে আসলাম আর অংকটা খুব কম সময়েই শিখে ফেললাম। এখন  চলুন মেইন কথায় আসি, আপনি কি করে ইউটিউব থেকে টাকা আয় করবেন তাইতো? । এর জন্য অনেক উপায় আছে। চলুন তালিকা করে দেখাইঃ 

Book review 

Phone review 

Car review 

Movie review 

Teaching math 

Teaching English etc 

Motivational video 

Cooking 

Traveling ect. 

এছাড়াও আরো অনেক উপায় আছে। যেগুলা নিয়ে লিখতে গেলে আলাদা ভাবে লিখতে হবে। যুদি জানতে চান তাহলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। তাঁর পরেও নিচের ভিডিওটা দেখে নিতে পারেন আপনার কাজে লাগতে পারে।

৫। গ্রাফিক ডিজাইনারঃ

ইন্টারনেট দুনিয়াতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল গ্রাফিক ডিজাইন। কারণটাও খুব সহজ প্রতিটা কোম্পানিতে একটা করে  গ্রাফিক ডিজাইনার লাগবেই। দরুন আপনি একটা আর্টিকেল লিখলেন তাঁর সাথে যুদি একটা সুন্দর ইমেজ না হয় তাহলে কিন্তু কেউ ক্লিক করে আর্টিকেলটা পড়বে না আপনি যতো ভালোই আর্টিকেল লিখেন না কেন। চলুন দেখে আসি আপনি আর কি কি করতে পারেন গ্রাফিক ডিজাইন শিখে, এর সাথে আমি  আপনাকে কিছু ইউটিউব চ্যানেল দিবো যেখান থেকে আপনি ফ্রিতেই গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে পারবেন শুধু ইউটিউব এ যেয়ে সার্চ দিলেই হবে।

আপনি এখনে দেয়া এই সাইট থেকে বাংলায় কোসটি করতে পারেন। যদিও এইটা ফ্রি না টাকা দিয়ে কিনতে হবে কিন্তু এইটা আমরা দেখা অনেক ভালো অনলাইন সাইট আমি এখান থেকে কোস করেছি তাই আপনারও চাইলে করতে পারেন। দেখে আসুন

T-shrit design 

Youtube thumbnail 

Cover photo youtube, facebook 

Logo design 

Banner design  

Photo editing ect .

বাংলায় শিখতে এই ইউটিউব চ্যানেলগুলা দেখতে পারেনঃ 

Learn With Shohag

Grafic School

Hellow Academy

CC designer

আর ইংলিশ এর জন্য এই ইউটিউব চ্যানেলঃ 

creatnprocess

TastyTuts

Studio-H

Rabbittlesilly

৬। অ্যাপ ডেভেলপারঃ

আপনি যদি জিজ্ঞাসা করেন গুগল অ্যাডসেন্স ব্যবহার করে কোনটা থেকে বেশি আয় হয় ওয়েবসাইট, ইউটিউব নাকি অ্যাপ থেকে তাহলে বলতে হবে অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করে। ওয়েবসাইট এবং ইউটিউব এর ৩ থেকে ৪ গুন টাকা আয় হয় অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট করে। আপনি একটু খোজ খবর করেও দেখতে পারেন।

তাছাড়া  অ্যাপ ডেভেলপাররা অনেক আয় করে থাকে অন্যদের জন্য অ্যাপ তৈরি করেও। তাহলে আপনি বলতে পারেন ভাই আমি কি করে শিখবো তাই না ব্যপারটা? প্রবলেম নাই আমি আপনাকে ফ্রিতে শিখার কিছু ভিডিও এর ওয়েবসাইট দিতেছি যা হবে কোডিং এর মাধ্যমে।

আপনি বলতে পারেন কোডিং ছাড়া কি কোনো উপায় নাই অ্যাপ ডেভেলপিং এর জন্য। তাহলে আমি বলবো আছে এবং ওইটাও ফ্রি! খুশি! আপনি কি thunkable এর নাম শুনেছেন?  যুদি শুনে না থাকেন তাহলে আমি বলবো আপনি thunkable এর মাধ্যমে ভালো আয় করতে পারবেন ওখান থেকে অ্যাপ তৈরি করে। ভিডিওটা দেখেন ভালো আইডিয়া পেয়ে যাবেনঃ 

অনুরুদ রইলো এইশসব PPC অ্যাড বানাবেন না। শুধু শিখবেন এখান থেকে তারপর ভালো অ্যাপ বানিয়ে গুগল প্লে স্টোরে এ আপলোড করবেন। আর না পাড়লেন কমেন্টয়ে জানাবেন।

আপনি এখনে দেয়া এই সাইট থেকে বাংলায় কোসটি করতে পারেন। যদিও এইটা ফ্রি না টাকা দিয়ে কিনতে হবে কিন্তু এইটা আমরা দেখা অনেক ভালো অনলাইন সাইট আমি এখান থেকে কোস করেছি তাই আপনারও চাইলে করতে পারেন। দেখে আসুন

৭। ফেইসবুক মার্কেটিং:

প্রায় ২০০ বিলিয়ন লোক ফেইসবুক ব্যবহার করে তাঁর মানে এখানে অনেক কাজের সুগোয আছে কারণটাও অনেকটাই সহজ এবং সরল যেখানে অনেক মানুষ এক জায়গায় থাকে ওইখানে কাজেরও অনেক সুযোগ আছে নিশ্চিই। বর্তমানে ৫০০ মত ই- কমার্স আছে যারা আবার ওয়েবসাইট নিয়েই কাজ করে আর ১০০০ আছে যারা শুধু ফেইসবুক পেইজ ব্যবহার করে ব্যবসা করে থাকে আপনি যদি এইটা না জেনে থাকেন তাহলে জেনে গেলেন।

এখন আপনি কি করে আয় করবেন প্রশ্ন হল এইটা! আপনি অন্যদের পেইজ এর কাজে সাহায্য করে আয় করতে পারেন। আবার আপনি জেনে থাকবেন এখন ফেইসবুক ভিডিও কন্টেন্ট এর জন্যও টাকা দিবে মানে অনেকটাই ইউটিউব এর মত কাজ আর কি এছাড়াও ইনস্ট্যান্ট আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন।

ফেইসবুক পেইড বিজ্ঞাপন ব্যবহার করে এবং আর অনেক কাজ করতে পারবেন যেমনঃ আপনার অ্যাপ থাকলে অ্যাপ ডাউনলোড করাতে পারবেন, কাঙ্ক্ষিত লিড নিতে পারবেন এছাড়া অনেক কাজ করতে পারবেন।  

আপনি এখনে দেয়া এই সাইট থেকে বাংলায় কোসটি করতে পারেন। যদিও এইটা ফ্রি না টাকা দিয়ে কিনতে হবে কিন্তু এইটা আমরা দেখা অনেক ভালো অনলাইন সাইট আমি এখান থেকে কোস করেছি তাই আপনারও চাইলে করতে পারেন। দেখে আসুন

৮। এস ই ওঃ

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন ব্যাপারটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ সকল ক্ষেতে। ধরুন আপনার একটি ওয়েবসাইট আছে এখানে অনেক ভালো লিখা আছে ইমেজও আছে কিন্তু আপনি ঠিক করে এস ই ও করেননি তাহলে কোনো কাজ হবে। কারণ আপনি যে শিরোনামটা লিখছেন তা দিয়ে আদো মানুষজন হয়ত খোঁজে না, এতে কি আপনার কোনো লাভ হবে কি ? হবে না  তাই আপনি এমন কিছু কিওয়ার্ড খুঁজতে হবে যা দিয়ে মানুষ সার্চ করে গুগলএ। এস ই ও এর কয়েকটা দাপ আছেঃ 

অন পেইজ এস ই ও

অফ পেইজ এস ই ও

টেকনিকাল এস ই ও

যুদি বলেন এস ই ও শিখে আপানর কি লাভ আর কতো টাকাই বা আয় করতে পারবেন তাহলে বলতে হবে, আপনি যুদি ভালোমত এস ই ও শিখেন তাহলে মিনিমাম ৬০ থেকে ১লাক্ষ টাকা আয় করতে পারবেন। আর এই আয় করার ব্যপারটা পুরোপরি আপনার উপর নির্ভর করে।

অনলিনে আয় করার জন্য অনেক উপায় আছে কিন্তু প্রতিটা কাজের জন্য আপনাকে পর্যাপ্ত সময় এবং শ্রম দিতে হবে। যখন দেখবেন আপনি ওই বিষয়টার উপর অবিজ্ঞ হয়ে গেছেন এর পর দেখবেন লোকজনই আপনাকে খুজে নিতেছে নাকি আপনাকে দৌড়াতে হবে তাদের এবং টাকার পিছনে। ভালো থাকবেন আর লিখাটা ভালো লাগলে অথবা কিছু জানতে চাইলে নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে যাবেন। 

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares