আপনি নিজেকে বিশ্বাস করেন কি? | Do you believe yourself

আপনি নিজেকে বিশ্বাস করেন কি?

Sharing is caring!

আপনি নিজেকে বিশ্বাস করেন কি না তা আগে আপনাকে জানতে হবে।  আপনি যদি জ্ঞাত বা অজ্ঞাতসারে ক্রমাগত আপনার মস্তিস্ককে বিশ্বাস এবং জেতার বার্তা প্রেরণ করতে থাকেন তবে মস্তিস্ক তাই স্বীকার করবে, এবং সেই অনুসারে কাজ করবে। যদি আপনি অবিশ্বাস এবং হারার বার্তা পাঠান তবে মস্তিস্ক তাই স্বীকার করবে এবং সেই অনুসারে কাজ করবে।

চিন্তা করুণ, আপনি নিজেকে বিশ্বাস করেন কি? আপনি যেমন বার্তা দেন, তেমনই পরিণাম পাবেন। আপনি নিজের ক্ষমতা এবং যোগ্যতা সম্পর্কে কি চিন্তা করেন, আপনার অবেচতন মস্তিস্ক সেই অনুসারে কাজের পরিকল্পনা করে।

আপনি যোগ্য এবং প্রভাবশালী হওয়া সত্বেও লোকেরা কোন বিশেষ কারণ ছাড়াই যদি আপনাকে অকেজো এবং অসফল বলে দেয় তবে অপনি ধীরে ধীরে বাস্তব ক্ষমতা ভুলে এটাই বিশ্বাস করতে শুরু করবেন যে আপনি একজন সাধারণ ব্যক্তি এবং নিজের মূল্য ভুলে যাবেন।

বাচ্চাদের সাহস দিতে হবেঃ

যে বাচ্চা প্রথম পরীক্ষাতে ভালো ফলাফল করে, সে অসাধারণ, ব্রিলিয়ান্ট, অতি বুদ্ধিমান, সিরিয়াস প্রভূতি তকমা পেয়ে যায়। এই কথা এই বাচ্চার সামনে এতবার বলা হয় যে সে বিশ্বাস করতে শুরু করে। তার বিশ্বাস হয়ে যায় যে, সে অসাধারণ এবং এই বিশ্বাসের অনুরুপ কাজ করতে শুরু করে, এবং অজ্ঞাতসারেই নিজের তকমাকে সঠিক প্রমাণ করে দেয়।

অন্যদিকে সমান যোগ্যতা এবং বুদ্ধি সম্পন্ন অপর বাচ্চা যদি অন্য কোন কারণবশতঃ শ্রেষ্ঠ ফল আনতে অক্ষম হয়, তবে সে সাধারণ, বোকা, বুদ্ধ  এবং গাধা বা গরুর মতন তকমা পায়। এই কথা গুলি বারংবার বলা হয় এবং নিজের অজ্ঞাত সারেই এই বাচ্চা বিশ্বাস করতে শুরু করে যে, সে বুদ্ধিমান নয় এবং সাধারণ হয়ে থাকবার জন্যই জন্মেছে ।

তাদের অবচেতন মস্তিস্ক সফলতার পরিবর্তে ব্যর্থতার জন্যই কাজশুরু করে। এই নেতিবাচক বিশ্বাস এই সব বাচ্চাদের অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেয়। বাবা-মার ছোট ভুল, অজ্ঞাতসারে দেওয়া তকমা, এক বাচ্চাকে সফল ব্যক্তির শ্রেণীতে এনে দাঁড় করিয়ে দেয়। অবিশ্বাস করলে আপনি অসাধারণ লোককেও সাধারণ বানাতে পারেন এবং বিশ্বাস করলে আপনি সাধারণ মানুষকেও অসাধারণ বানাতে পারেন। আপনিও সেই সমস্ত কাজ করতে পারেন, যা এই পৃথিবীর অন্যরা করতে পারে। লোকেরা কি বলল তা ভুলে যান এবং দৃঢ়তার সাথে দাঁড়িয়ে থাকুন। বিশ্বাসকে বাঁচিয়ে রাখুন, সারা পৃথিবী অপনার পিছনে দাঁড়িয়ে থাকবে।

গল্পঃ

থমাস এলওয়া এ্যাডিসন একবার ছাএদের মধ্যে বলেছিলেন যে আমি শতবার অসফল হয়েছি। ছোটো বেলায় শিক্ষকদের থেকে শুরু করে বৈজ্ঞানীক বন্ধুরা পর্যন্ত সকলেই আমাকে বোকা বলত। আমি চেষ্টা করে, সময়, অর্থ এবং জীবনের অপচয় করছি। আমি তাদের কথা মেনে নিতে অস্বীকার করি, আমি নিজেকে বোঝাই যে একদিন আমি অবশ্যই উচ্চ শিখরে পৌছাব। অন্যদের তকমা ফেলে দিই এবং নিজের মস্তিস্কে নিজের দৃঢ় বিশ্বাস পাঠাতে শুরু করি, পরিণাম আপনাদের সামনে।

সফলতা আসবেই হয়তো কিছু আগে অথবা পরে কিন্তু তার জন্য অন্যদের কথা শুনলে চলবে না। আপনি জানেন কি করছেন কেন করছেন যা হয়তো তারা জানে না। কোনো কিছু এমনিতেই আসে না তার জন্য কষ্ট করতে হয় লেগে থাকতে হয়। আপনি আপনার উপর বিশ্বাস রাখুন আর আল্লাহ্‌ উপর ভরসা করুন, দেখবেন আপনি আপনার জায়গাতে ঠিকই পৌছে গেছেন।

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

shares
error: Content is protected !!